ইউটিউব-এ ৩৬০ ডিগ্রী ভিডিও

জানুয়ারিতে গুগল ঘোষণা করেছিল যে তারা ইউটিউবে খুব জলদিই ৩৬০ ডিগ্রি ভিডিও সার্ভিস চালু করবে। এর ফলে, ইউটিউবে কিছু ভিডিও দেখার ক্ষেত্রে দর্শককে শুধুমাত্র ক্যামেরার একটি নির্দিষ্ট কোন থেকেই তা দেখতে পারবে না, বরং এর চারিদিক দেখতে পারবে। যে কারনে দর্শক ভিডিও নতুন ভাবে দেখার সুযোগ পাবে যা তারা আগে কখনও পায়নি। অবশ্য জানুয়ারিতে ঘোষণা করা হলেও গুগল সম্প্রতি এই সুবিধা ইউটিউবে চালু করে।

এটি ইউটিউবে একটি নতুন মাধ্যমের সুচনা করে, যেখানে খুব দ্রুতই একাধিক ৩৬০ ডিগ্রি সমৃদ্ধ ইউটিউব ভিডিও দেখার সুযোগ পাবেন। ফলে ৩৬০ ডিগ্রি ভিডিও রেকর্ডিং ক্ষমতা সম্পন্ন ক্যামেরার চাহিদাও ব্যাপাকহারে বৃদ্ধি পাবে বলে ধারণা করা যায়। এক্ষেত্রে উল্লেখ্য যে এসকল ক্যামেরা এর দাম মূলত ৩০০-১০০০ ডলারের মধ্যে হয়ে থাকে। আর ইউটিউবের ভিডিও ফরম্যাট যেসকল ক্যামেরা সাপোর্ট করে তার মধ্যে বাবল্ক্যাম, জাইরপ্টিক এর থ্রিসিক্সটিক্যাম, আইসি রিয়েলটেকের অ্যালি, কোডাকের এসপি৩৬০ এবং রিকো থেটা উল্লেখ্য।

ইউটিউবের এ নতুন সুচনার মাধ্যমে ভারচুয়াল রিয়েলিটি হেডসেটগুলোর চাহিদাও এখন ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাবে বলে ধারণা করা যায়। এক্ষেত্রে ফেসবুকের ওকুলাস ভিআর এবং গুগলের কার্ডবোর্ড চাহিদার শীর্ষে থাকবে। এ চাহিদা বৃদ্ধি পাবার কারন হবে যে, ভিআর এর মাধ্যমে দর্শক সম্পূর্ণভাবে ওই ভিডিও হবার মুহূর্তে নিজেকে নিয়ে যেতে পারবে। বর্তমানে ইউটিউবের এই নতুন সুবিধা শুধুমাত্র ইউটিউবের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ এবং কম্পিউটারে ক্রোম ব্রাউজারে পাওয়া যাবে। অ্যাপলের আইওএস এর জন্যেও এটি খুব দ্রুত এটি চালু করা হবে বলে গুগল জানিয়েছে।

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের ক্ষেত্রে ফোনটি কিভাবে করে ধরা রয়েছে সে বিবেচনায় ভিডিও কোন দিকে যাবে তা নির্ধারণ করবে অপরদিকে ব্রাউজারের ক্ষেত্রে কার্সর দিয়ে দিয়ে নাড়িয়ে দিক পরিবর্তন করা যাবে।

এ বিষয়ে একটি ব্লগপোস্টে ইউটিউবের এক কর্মকর্তা জানিয়েছে, “আমরা সকলেই আমাদের নানা ধরনের ভিডিও আমাদের দর্শকদের সাথে শেয়ার করে থাকি। কিন্তু কেমন হত যদি আমরা তার চেয়েও বেশি কিছু শেয়ার করতে পারতাম? যেমন, ভিডিও করার মুহূর্তের পুরো ক্ষণটি?”

তিনি আরও বলেন, “আপনি এখন আপনার দর্শককে আশেপাশের সব কিছু দেখতে দিতে পারবেন হোক তা কনসার্টে, আকাশে অথবা কোন নির্দিষ্ট জায়গায়। অথবা আপনি নিজের একটি অ্যাডভেঞ্চার ভিডিও বানাতে পারেন যেখানে আপনি নির্ধারণ করতে পারবেন কোন দিকে তাকালে দর্শক আসলে কি দেখতে পারবে।”

বর্তমানে কেউ ভিডিও আপলোড করতে চাইলে তাকে গিটহাবে গিয়ে এ বিষয়ে টেকনিক্যাল তথ্য জেনে নিতে হবে এবং একটি পাইথন স্ক্রিপ্ট ব্যবহার করতে হবে ভিডিও এর মেটাডাটা ঠিক রাখতে। যদিও ইউটিউব চায় পুরো ব্যাপারটি স্বয়ংক্রিয় রাখতে কিন্তু বর্তমানে এই স্ক্রিপ্ট থাকা জরুরী।

অবশ্য এদিকে আরেকটি উল্লেখ্য বিষয় এর ভিডিও কোয়ালিটি সাধারণ ইউটিউবের ভিডিও এর চেয়ে কম হবে কারন এটি সাধারনের তুলনায় ৪-৫ গুণ ব্যান্ডিউইথ বেশি ব্যবহার করে। আর যেহেতু ভিডিওগুলো ২৪- ৩০ ফ্রেম এ চলবে প্রতি সেকেন্ডে তাই কোয়ালিটি খুব বেশি হবে না। বর্তমানে ইউটিউব একটি লিস্ট করে দিয়েছে কিছু ৩৬০ ভিডিও এর যা যে কেউ চাইলে দেখতে পারবে।

লেখকঃ এহসানুল হক।

Facebook Comments

Leave a Reply