গুগল এর ৭টি ব্যর্থ প্রোডাক্ট

মূলত সার্চ ইঞ্জিন হলেও এখন পর্যন্ত অনেক প্রোডাক্ট তৈরি করেছে বিশ্বখ্যাত কোম্পানী গুগল। তাদের মধ্যে বেশ কিছু প্রোডাক্ট তারা বন্ধও করে দিয়েছে। সেসব প্রোডাক্টগুলোর কয়েকটি নিয়ে এই লেখা।

১। গুগল হেল্পআউটসঃ
গুগল হেল্পআউটস হচ্ছে গুগলের একটি সহযোগী সেবা যার মাধ্যমে সরাসরি ভিডিও চ্যাটের মাধ্যমে অভিজ্ঞ কারো কাছ থেকে কোন সাহায্য নেওয়া যায়। গুগল হেল্পআউটসের মাধ্যমে মিউজিক, কম্পিউটার, রান্নাবান্না, শিক্ষা, ফ্যাশন, স্বাস্থ্য ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ের উপর সাহায্য পাওয়া যায়। গুগল হেল্পআউটস সেবা নিতে হলে ব্যবহারকারীদের গুগলকে নির্দিষ্ট ফি প্রদান করতে হত।

Google-helpoutsচালু হয়ঃ গুগল হেল্পআউটস ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে চালু হয়।

বন্ধ হয়ঃ ১৩ই ফেব্রুয়ারী ২০১৫তে গুগল অফিসিয়ালি ঘোষণা করে যে ২০ই এপ্রিল ২০১৫ গুগল হেল্পআউটস বন্ধ করে দিবে।

বন্ধ হওয়ার কারণঃ যেহেতু হেল্পআউটস পেইড ছিল, আর একই ধরণের সেবা ইউটিউবে ফ্রি পাওয়া যেত। এটাই হয়ত গুগল হেল্পআউটস বন্ধ হওয়ার কারণ ছিল।

Google_Glass_with_frame
২। গুগল গ্লাসঃ
গুগল গ্লাস হচ্ছে অপটিক্যাল হেড-মাউন্টেড ডিসপ্লে (OHMD) সমৃদ্ধ এক ধরণের পরিধানযোগ্য প্রযুক্তি। নাম দেখেই বোঝা যায়, এটার ডেভেলপারও গুগল। গুগল গ্লাস এক ধরণের পরিধানযোগ্য কম্পিউটারও বটে। এটার অপারেটিং সিস্টেম হচ্ছে আন্ড্রয়েড। ডুয়াল কোর  প্রসেসর, ২ জিবি র‍্যাম, ১৬ স্টোরেজ , ৫এমপি’র ছবি এবং ৭২০পি’র ভিডিও, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, মাইক্রো ইউএসবি সবই আছে।

চালু হয়ঃ সীমিত সময়ের জন্য আমেরিকাতে ১৫ই এপ্রিল ২০১৩ তে ১৫০০ ডলারে প্রথম গুগল গ্লাস বিক্রি করা হয়। পরবর্তীতে ১৫ই মে ২০১৪তে একই দামে আমেরিকাতে সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।

বন্ধ হয়ঃ ১৫ই জানুয়ারী ২০১৫তে গুগল ঘোষণা করে যে তারা আর গুগল গ্লাস তৈরি করবে না।

বন্ধ হওয়ার কারণঃ নতুন করে উৎপাদন বন্ধ রেখে তারা গুগল গ্লাসের ডেভেলপমেন্টের কাজ করতেছে। হয়ত অদূর ভবিষ্যতে গুগল গ্লাস আবার চালু হতে পারে।
google-wave-logo৩। গুগল ওয়েভঃ
গুগল ওয়েভ যা অ্যাপাচি ওয়েভ নামেও পরিচিত। গুগল ওয়েভ হচ্ছে একটি ওয়েব ভিত্তিক কম্পিউটিং প্ল্যাটফর্ম এবং কমিউনিকেশন প্রোটোকল যা ডিজাইন করা হয়েছিলো ই-মেইল, ইনস্ট্যান্ট ম্যাসেজিং, উইকিস এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোর মত মাধ্যম গুলোকে একত্র করার জন্য।

চালু হয়ঃ সেপ্টেম্বর ২০০৯ সালে শুধুমাত্র ডেভেলপারদের জন্য গুগল ওয়েভ রিলিজ করা হয়। এরপর ১৯ মে ২০১০ সালে সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

বন্ধ হয়ঃ ২০১২ সালের এপ্রিল মাসে গুগল ওয়েভ বন্ধ হয়ে যায়।

বন্ধ করার কারণঃ ব্যবহারকারী স্বল্পতার কারণে গুগল ওয়েভ বন্ধ করা হয়।

৪। গুগল নলঃ
নির্দিষ্ট ব্যবহারকারীর লিখিত আর্টিকেলের উপর ভিত্তি করে ২৩ জুলাই ২০০৮ সালে গুগল নল প্রকাশ করা হয়েছিল। তখন প্রায় হাজার খানেক আর্টিকেল ছিল যার বেশির ভাগই ছিল স্বাস্থ্য এবং চিকিৎসা বিষয়ক। অনেক বিশেষজ্ঞরা মনে করতেন উইকিপিডিয়া’র সাথে প্রতিযোগিতা করার জন্য গুগল নলের উদ্ভব হয়।

Knol-logoচালু হয়ঃ ১৩ ডিসেম্বর ২০০৭ সালে ঘোষণা করা হলেও ২৩ জুলাই ২০০৮ সালে গুগল নল উন্মুক্ত করা হয়।

বন্ধ হয়ঃ ৩০ এপ্রিল ২০১২ সালে গুগল নল বন্ধ করা হয়।

বন্ধ করার কারণঃ মূলত একই রকম আর একটা সেবা “অ্যানোটাম” এর ডেভেলপ করার জন্যই গুগল নল বন্ধ করে দেওয়া হয়।
orkut-byGoogle-logo
৫। অরকুটঃ
অরকুট ছিল গুগলের একটি সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট। এটা মূলত ব্যবহারকারীদের নতুন পুরাতন বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য ডিজাইন করা হয়। অরকুটের স্রষ্টা অরকুট বুয়ুকোকটেন এর নাম অনুসারে এটার নামকরণ করা হয়, যিনি গুগলের একজন কর্মী ছিলেন। ভারত এবং ব্রাজিলের ২০০৮ সালের সব চেয়ে বেশি ভিজিটেড সাইটের মধ্যে অরকুট ছিল।

চালু হয়ঃ ২৪ জানুয়ারী ২০০৪ সালে অরকুট চালু হয়।

বন্ধ হয়ঃ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে অরকুট বন্ধ হয়।

Google_Buzz_logo_new৬। গুগল বাজঃ
গুগল বাজ ছিল গুগলের সামাজিক যোগাযোগ, মাইক্রোব্লগিং এবং ম্যাসেজিং টুল যা জিমেইল এর সাথে ইন্টিগ্রেটেড অবস্থায় ছিল। গুগল বাজ এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন লিঙ্কস, ফটো, ভিডিও ইত্যাদি শেয়ার করতে পারত। অনেক বিশেষজ্ঞরা মনে করতেন যে, সামাজিক যোগাযোগের সাইট “ ফেসবুক” এবং মাইক্রোব্লগিং সাইট “টুইটার” এর সাথে প্রতিযোগিতা করার জন্য গুগল বাজের জন্ম।

চালু হয়ঃ ৯ ফেব্রুয়ারী ২০১০ সালে গুগল বাজ চালু হয়।

বন্ধ হয়ঃ ১৫ ডিসেম্বর ২০১১ সালে গুগল বাজ বন্ধ হয়।

বন্ধ হওয়ার কারণঃ গুগল বাজ বন্ধ করে পরবর্তীতে গুগল প্লাস এ স্থানান্তর করা হয়।
480px-Google_Reader_logo৭। গুগল রিডারঃ
গুগল রিডার ছিল গুগলের একটি আরএসএস/এটম ফিড এগ্রেগেটর। (ফিড এগ্রেগেটর হচ্ছে একটি ক্লায়েন্ট সফটওয়্যার বা ওয়েব অ্যাপ্লিকেশান যা অনলাইন পত্রিকা, ব্লগস, পডকাস্টস এবং ভিডিও ব্লগ গুলোকে সহজে দেখানোর জন্য এক জায়গায় একত্র করে রাখে।) গুগলের ইঞ্জিনিয়ার ক্রিস ওয়েদেরেল গুগল রিডার তৈরি করেছিল।

চালু হয়ঃ ৭ অক্টোবর ২০০৫ সালে গুগল রিডার চালু হয়।

বন্ধ হয়ঃ ১ জুলাই ২০১৩ সালে গুগল রিডার বন্ধ হয়।

বন্ধ হওয়ার কারণঃ মূলত ব্যবহারকারী কমে যাওয়ার কারণেই গুগল রিডার বন্ধ করা হয়।

লেখক : ইমরান হোসেন।

Facebook Comments

Leave a Reply