ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড

আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের লোগো

ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড এক ধরণের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহন করতে পারে। ১৯৮৯ সালে বুলগেরিয়াতে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়। তারপর থেকে প্রতি বছর এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বাংলাদেশও বিগত কয়েক বছর ধরে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে।

আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে দল গঠনের লক্ষ্যে প্রথমে জাতীয় ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড নামে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়, তারপর সেখানে যারা ভালো করে, তাদেরকে নিয়ে বেশ কিছু বাছাই প্রতিযোগিতা করার পরে চূড়ান্ত দল গঠন করা হয়। আর জাতীয় প্রতিযোগিতায় আসতে হলে প্রথমে পাড়ি দিতে হবে বিভাগীয় অলিম্পিয়াড। বাংলাদেশ ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের কোনো অফিশিয়াল ওয়েবসাইট নেই। তাই খবরাখবর পাওয়ার জন্য চোখ রাখতে হবে এই ফেসবুক গ্রুপে : https://www.facebook.com/groups/bdoifamily/

বাংলাদেশে বিভাগীয় ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতায় সাধারণত প্রোগ্রামিং সমস্যা দেওয়া হয় না। বরং গাণিতিক যুক্তি-বুদ্ধি যাচাই করার জন্য প্রশ্ন দেওয়া হয়। তবে জাতীয় ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে প্রোগ্রামিং করেই সমস্যা সমাধান করতে হয়। সেখানে সি ও সি প্লাস প্লাস প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করা যায়।

বিভাগীয় ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে প্রস্তুতির জন্য হাই স্কুলের গণিত বইয়ের উপর পূর্ণ দখল থাকতে হবে। সেই সাথে ডক্টর কায়কোবাদ ও মুহম্মদ জাফর ইকবালের নিউরণে অনুরণন বইটি থেকে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করতে হবে। মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘গণিত এবং আরো গণিত’ ও একটি ভালো বই – ক্লাস সেভেন-এইটের শিক্ষার্থীরদের জন্য।

জাতীয় ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে যেহেতু প্রোগ্রামিং করে সমস্যার সমাধান করতে হবে, তাই প্রোগ্রামিং জানতে হবে। প্রোগ্রামিং শেখার জন্য অনলাইনে একটি ফ্রি কোর্স আছে : http://dimikcomputing.com/course/introduction-to-programming-online-course/। একটি জিমেইল একাউন্ট থাকলেই রেজিস্ট্রেশন করা যায়। কোর্সের ভিডিওগুলো নিয়ে ‘প্রোগ্রামিংয়ে হাতে খড়ি’ নামক একটি ডিভিডিও তৈরি করা হয়েছে, যেটি পাওয়া যায় ঢাকার নীলক্ষেতের হক লাইব্রেরিতে। আর ঘরে বসেও কেনা যায়, রকমারি ডট কম থেকে। ভিডিও লেকচারের পাশাপাশি বই পড়তে হবে। প্রোগ্রামিং শেখা শুরুর করার জন্য বাংলায় ‘কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ১ম খণ্ড (লেখক: তামিম শাহরিয়ার সুবিন, প্রকাশক: অন্যরকম প্রকাশনী)’ বইটি পড়া যেতে পারে। বইয়ের ওয়েবসাইটে বইটি বিনামূল্যে পড়া যায় : http://cpbook.subeen.com। এছাড়া ওয়েবসাইটে কিছু সমস্যা আছে, যেগুলো সমাধানের চেষ্টা করলে প্রোগ্রামিং স্কিল বাড়বে।

ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের জন্য গাণিতিক জ্ঞান ও দক্ষতা বাড়াতে দ্বিমিক কম্পিউটিং স্কুল আয়োজিত, হাম্মাদ আলী স্যারের ডিসক্রিট ম্যাথ নামক অনলাইন কোর্সটি করা যেতে পারে এখান থেকে : http://dimikcomputing.com/course/discrete-mathematics-online-course/। এটিও সবার জন্য ফ্রি। লেকচার ভিডিওগুলোর ডিভিডি কিনতে পাওয়া যায় ঢাকার নীলক্ষেতের হক লাইব্রেরি ও রকমারি ডট কম-এ।

প্রোগ্রামিং চর্চা করার জন্য আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটের লিঙ্ক পাওয়া যাবে এখানে : http://cpbook.subeen.com/2011/08/blog-post_854.html

সবার জন্য শুভকামনা।